জ্যোতিষশাস্ত্র

নতুন বছর পড়ার আগেই বাড়িতে এনে রাখুন এই জিনিসগুলি, সংসারে সুখ-সমৃদ্ধি বাড়বে, বজায় থাকবে লক্ষ্মীর আশীর্বাদ

হাতে আর মাত্র একটা মাস। এই মাসটা শেষ হলেই নতুন বছরে পা রাখব আমরা। নতুন বছর যাতে ভালো কাটে, এই আশাই করব আমরা সকলে। নতুন বছরে সংসারে সুখ-সমৃদ্ধি ধরে রাখতে জ্যোতিষশাস্ত্রের কিছু নিয়ম মেনে চলুন। এর জেরে দুঃখকষ্ট থেকে মুক্তি পাবেন।

জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, নববর্ষের আগেই বাড়িতে কিছু জিনিস এনে রাখুন। তাহলে নতুন বছরে সুফল পাবেন আপনিও। এই উপায়ে নয়া বছরে আনন্দে কাটবে জীবন। বৃদ্ধি পাবে ধনসম্পত্তি। জেনে নেওয়া যাক কোন কোন জিনিসগুলি বাড়িতে এনে রাখবেন নতুন বছরের আগে-

ময়ূরপঙ্খ
ময়ূরপঙ্খ কৃষ্ণের অত্যন্ত প্রিয়। যে বাড়িতে ময়ূরপঙ্খ থাকে সেখানে কৃষ্ণও বাস করেন। পাশাপাশি সেই পরিবারে লক্ষ্মীর আশীর্বাদ থাকে। নতুন বছরে পরিবারের আনন্দ দ্বিগুণ করার জন্য বাড়িতে ময়ূরপঙ্খ এনে রাখুন। তবে ১-৩টি ময়ূরপঙ্খ এনে রাখবেন শুধু।

তুলসি গাছ

নতুন বছরের আগমনের আগে বাড়িতে গাছ লাগান। এর ফলে শুভ ফলাফল লাভ করবেন। এ ক্ষেত্রে বাড়িতে তুলসী গাছ না-থাকলে, তা এনে লাগাতে পারেন। তুলসী পরিবারে ইতিবাচক শক্তির প্রভাব বিস্তার করবে। পাশাপাশি ওই পরিবারে বসবাসকারী সদস্যরা বিষ্ণুর আশীর্বাদ লাভ করবেন।

মুক্তো শঙ্খ

পরিবারে মুক্তো শঙ্খ রাখলে সুখ-সমৃদ্ধি বজায় থাকে। এর ফলে কখনও অর্থাভাব দেখা দেয় না। তাই নতুন বছরে সুখ-সমৃদ্ধি বৃদ্ধির জন্য মুক্তো শঙ্খ কিনে আনুন। এই শঙ্খের পুজো করার পর টাকা রাখার লকারে রেখে দিন। এর প্রভাবে উন্নতির পথ প্রশস্ত হবে ও পরিবারে কখনও অর্থ সমস্যা দেখা দেবে না।

শুকনো নারকেল

নববর্ষের আগে শুকনো নারকেলকে মুড়ে লকারে রেখে দিন। বাড়িতে এই নারকেল রাখলে ধন-সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পায়। এমন পরিবারে কখনও অর্থাভাব থাকে না। নববর্ষের আগমনের আগে এই উপায় করলে অর্থ সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

ধাতুর কচ্ছপ

ধাতুর কচ্ছপও অত্যন্ত শুভ। বাস্তু শাস্ত্রে কচ্ছপকে সুখ ও সমৃদ্ধির প্রতীক মনে করা হয়। ২০২৩-এর আগেই পিতল, কাসা বা রুপো কচ্ছপ এনে বাড়িতে রাখুন। এর প্রভাবে জীবনে উন্নতি লাভ করবেন।

লাফিং বুদ্ধা

নতুন বছরে লাফিং বুদ্ধা কেনা সবচেয়ে শুভ ফলদায়ী প্রমাণিত হতে পারে। বাড়ির উত্তর-পূর্ব দিকে লাফিং বুদ্ধার মূর্তি রাখবেন। এই মূর্তি রাখলে পরিবারে কখনও অর্থাভাব থাকবে না।

ধাতুর হাতি

বাস্তু শাস্ত্র বলছে বাড়িতে ধাতুর তৈরি হাতির মূর্তি রাখা অত্যন্ত শুভ। এর প্রভাবে পরিবারে ইতিবাচক শক্তি সঞ্চারিত হয়। নেতিবাচক শক্তিকে ধ্বংস করে ধাতুর হাতির মূর্তি। তাই ডিসেম্বরের শেষ দিকে, অর্থাৎ নতুন বছরের আগমনের আগে রুপোর তৈরি হাতির মূর্তি বাড়িতে এনে রাখুন। হাতি রাখলে বাড়িতে সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি বজায় থাকে।a

Back to top button
%d bloggers like this: