কলকাতা

পুলিশ লেখা গাড়ি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে সশস্ত্র যুবক, গাড়ি থেকে মিলল আগ্নেয়াস্ত্র, ভোজালি, মা’দ’ক, গ্রেফতার যুবক

২১শে জুলাই শহিদ দিবসে তৃণমূলের সমাবেশ শুরু হওয়ার আগেই ঘটে গেল এক বড় ঘটনা। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে ঢুকে গেল এক কালো গাড়ি। সেই গাড়িতে আবার পুলিশের স্টিকার লাগানো। গাড়িতে ছিলেন এক যুবক। ওই গাড়ি দেখেই তা আটকায় পুলিশ। গাড়ি থেকে উদ্ধার হয় আগ্নেয়াস্ত্র, মা’দ’ক ও ভোজালি।

কী ঘটেছিল ঘটনাটি?

পুলিশ সূত্রে খবর, এদিন সকালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির গলিতে ঢোকার চেষ্টা করছিল কালো গাড়িটি। কড়া নিরাপত্তায় ঘেরা কালীঘাট চত্বর। গাড়িটি দেখেই আটকায় পুলিশ। এরপরই গাড়ির ভিতরে অস্ত্র দেখতে পায় তারা। এদিকে ওই যুবক প্রথমে নিজেকে পুলিশ কর্মী বলে পরিচয় দেয়। পরিচয়পত্র চাওয়া হয় যুবকের। পুলিশ সূত্রে খবর, দেখা যায় ওই পরিচয় পত্র ভুয়ো। এরপরই আটক করা হয়েছে ওই যুবককে। ওই যুবকের নাম নূর আলম।

এই বিষয়ে কলকাতার নগরপাল বিনীত গোয়েল বলেন, “বিভিন্ন এজেন্সির আইকার্ড রয়েছে ওই যুবকের কাছে। আমরা খতিয়ে দেখছি। তিনি কোথা থেকে এ ধরনের পরিচয়পত্র পেলেন, তাও জানার চেষ্টা চলছে। হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিট, যেখানে আমাদের মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন, সেখানে উনি দেখা করতে যাচ্ছিলেন। অথচ সঙ্গে ছিল ভোজালি, আগ্নেয়াস্ত্র, কিছু গাঁজা। ফলে কোন উদ্দেশ্য নিয়ে উনি এসেছিলেন তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এই ধরনের ঘটনা অত্যন্ত গুরুতর ঘটনা। ইতিমধ্যেই এসটিএফ, স্পেশাল ব্রাঞ্চ এবং স্থানীয় থানা তদন্ত করছে। ওনাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে”।

বলে রাখি, গত বছরের ৩ জুলাই মমতার বাড়ির পাঁচিল টপকে ঢুকে পড়েছিল এক যুবক। হাফিজুল নামে সেই যুবক সারা রাত মমতার বাড়িতে ঘাপটি মেরে ছিল। তার জামার মধ্যে লুকোনো ছিল একটা লোহার রড। সেবার ওই ঘটনা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠেছিল। মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা বলয়ের মধ্যে কী করে এমনভাবে বাড়ির মধ্যে ঢুকে পড়ল ওই যুবক? পরে অবশ্য ওই যুবকের পরিবার দাবি করেছিল, তাঁদের ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন।

Back to top button
%d bloggers like this: