রাজ্য

‘আমাদের দলে অনেক নেতা রয়েছে যারা হাত পেতে টাকা নেয়’, দুর্নীতির কথা স্বীকার নিলেন তৃণমূল বিধায়ক, অস্বস্তি শাসকদলে

নানান দুর্নীতি নিয়ে রাজ্য এখন তোলপাড়। শাসক দলের একাধিক নেতার নাম জড়িয়েছে নানান দুর্নীতি। একাধিক তৃণমূল বিধায়ক-মন্ত্রী জেলবন্দি। এমন আবহে এবার তৃণমূল বিধায়কই স্বীকার করে নিলেন যে বুথ স্তরের নেতাদের মধ্যেও এই দুর্নীতির শিকড় ছড়িয়েছে। ওই বিধায়ক বলেন, “আমি শুধু আইএসএফ-কে দোষ দেব না, আমাদের নেতাদেরও অনেক দোষ রয়েছে”।

গতকাল, শুক্রবার ভাঙড়ের ফুলবাড়ি এলাকায় একটি সভা করেন ক্যানিং পূর্বের তৃণমূল বিধায়ক শওকত মোল্লা। সেই সভাতেই তিনি সমাজের কাছে তৃণমূল কর্মীদের দায়বদ্ধতার কথা বলেন তিনি। বিধায়কের কথায়, যে সমস্ত দলীয় কর্মী টাকা নিয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হবে। বিধায়কের হুঁশিয়ারি, যদি দোষ প্রমাণ হয়, তাহলে তাদের দল থেকে বের করে দেওয়া হবে।

এদিন শওকত মোল্লা বলেন, “আইএসএফ-কে দোষ দেব না। আমাদের নেতাদেরও দোষ আছে। আমাদের কিছু ভিখারি নেতা আছেন। তাঁদের কাজ কী? হাত পেতে টাকা নেওয়া। ঘরের জন্য দাও পাঁচ হাজার-দশ হাজার। বিচারের জন্য দাও পাঁচ হাজার-দশ হাজার। রাস্তার জন্য দাও পাঁচ-দশ হাজার। আমি আমার বিধানসভায় নতুন নিয়ম চালু করেছি। কোনও নেতা গরিব মানুষের কাছ থেকে পাঁচ টাকা নিলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাঁকে দল থেকে বের করে দেওয়া হবে”।

এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিধায়ক বলেন, “বুথ স্তরের কিছু নেতা আছেন, যাঁদের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। আগাম জামাতে চাই। আমাদের দল দুর্নীতিতে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে। টাকা নেওয়ার খবর পেলেই তদন্ত হবে। দোষ প্রমাণিত হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দল থেকে তাড়িয়ে দেব”।

শওকত মোল্লার এই মন্তব্যকে সমর্থন করে ভাঙড়ের তৃণমূল নেতা কাইজার আহমেদ। তিনি বলেন, “আমরা যারা স্বচ্ছ রাজনীতি করি, এটা তাঁদের সকলের দাবি। শুরু থেকেই আমরা একথা বলে এসেছি। দল যাতে সুশৃঙ্খলভাবে চলে, তার জন্যই শওকত মোল্লা এমনটা বলেছেন”। তবে তৃণমূল বিধায়কের এহেন মন্তব্য নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়ে নি বিজেপি।

Back to top button
%d bloggers like this: