রাজ্য

মোমবাতি জ্বালিয়ে, কেক খাইয়ে তৃণমূল বিধায়কের জন্মদিন পালন থানার আইসি-র, ছবি প্রকাশ্যে আসতেই তুমুল বিতর্ক, দু’জনের বক্তব্যেই গরমিল

মোমবাতি জ্বালিয়ে জন্মদিনের কেক কাটছেন বিধায়ক। আর কেক কাটার পর তাঁকে কেক খাইয়ে দিলেন থানার আইসি। এমনই একটি ছবি ঘোরাফেরা করছে সোশ্যাল মিডিয়ায় যা নিয়ে বিতর্ক এখন তুঙ্গে। পূর্বস্থলী উত্তরের তৃণমূল বিধায়ক তপন চট্টোপাধ্যাযয়ের জন্মদিনে পূর্বস্থলী থানার আইসি সন্দীপ গঙ্গোপাধ্যায়ের কেক খাইয়ে দেওয়া নিয়ে তুমুল বিতর্ক দানা বেঁধেছে। একজন পুলিশ আধিকারিক কীভাবে একজন বিধায়কের কার্যালয়ে গিয়ে তাঁর জন্মদিন পালন করেন, তা নিয়ে যেমন প্রশ্ন উঠেছে, তেমনই আবার প্রশ্ন উঠেছে পুলিশ আধিকারিকের নিরপেক্ষতা নিয়েও।

কী দেখা গিয়েছে ওই ভিডিওতে?

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে পূর্বস্থলী উত্তরের তৃণমূল বিধায়ক তপন চট্টোপাধ্যায়কে তাঁর জন্মদিনে কেক কেটে খাওয়াচ্ছেন পূর্বস্থলী থানার আইসি সন্দীপ গঙ্গোপাধ্যায়। দলীয় কার্যালয়েই চলছে ‘সেলিব্রেশন’।

তপনবাবুর জন্মদিনের কেক কাটতে ও মোমবাতি জ্বালাতে দেখা যাচ্ছে আইসি-কে। ফলত বিরোধীদের প্রশ্ন একজন আইসি যদি তৃণমূল বিধায়কের এইভাবে জন্মদিন পালন করেন তাহলে তাঁর কাছে অভিযোগ জানিয়ে আদৌ কি সুবিচার মিলবে?

এই বিষয়ে নিয়ে আইসি ও বিধায়ক দুজনের সঙ্গেই যোগাযোগ করে এক সংবাদমাধ্যম। কিন্তু তাদের দু’জনের বক্তব্যেই গরমিল দেখা যায়। একদিকে আইসি সন্দীপ গঙ্গোপাধ্যায়ের দাবী, বিধায়ক তাঁকে নিজেই ডেকে পাঠিয়েছিলেন। তিনি জানতেন না যে বিধায়কের জন্মদিন রয়েছে। অন্যদিকে, বিধায়ক তপন চট্টোপাধ্যায়ের কথায়, আইসি নিজেই এসেছিলেন, তিনি কাউকে ডাকেন নি।

কী জানান দু’জনে?

আইসি সন্দীপ গঙ্গোপাধ্যায় সাফাই দিতে গিয়ে বলেন, “এলাকায় খোঁজ নিয়ে দেখবেন আমি নিরপেক্ষভাবেই কাজ করে এসেছি। আমি জানতাম না ওনার জন্মদিন রয়েছেন। বিধায়ক আমায় ডেকেছেন। বললেন একবার আসতে। তাই আমি গিয়েছিলাম। সৌজন্য রক্ষার্থেই গিয়েছি”।

আবার তৃণমূল বিধায়ক তপন চট্টোপাধ্যায়ের দাবী, “কেউ যদি ভালবেসে আসে আমি কি তাড়িয়ে দেব? আমি কাউকে ডাকিনি। নিজে থেকেই এসেছেন”।

Back to top button
%d bloggers like this: