রাজ্য

ভরসা সেই ভারত! করোনা যুদ্ধে ইসলামাবাদের পাশে মোদী সরকার, পৌঁছচ্ছে সাড়ে চার কোটি দেশীয় টিকার ডোজ

সম্পর্ক যতই খারাপ হোক না কেন‌। যতই আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতের বিরোধিতা করুক না কেন‌‌ পাকিস্তান। যত‌ই নিয়ত যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে সীমান্তে গোলাগুলি চালাক পাকিস্তান সাহায্যের হাত বাড়ানো থেকে কসুর করলো না ভারত।

করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে ইসলামাবাদের পাশেই দাঁড়াচ্ছে ভারত। GAVI-র সাহায্যে সাড়ে চার কোটি ভ্যাকসিনের ডোজ পাকিস্তানকে দেবে নয়াদিল্লি। প্রসঙ্গত, ২০০০ সালে স্থাপিত আন্তর্জাতিক সংস্থা GAVI সারা বিশ্বজুড়ে গরিব দেশগুলিকে টিকা সরবরাহের কাজ করে। গত সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের চুক্তি হয়েছিল করোনা টিকার বিষয়ে।

আরও পড়ুন –শিশুদের ছেড়ে দাও, আমাকে মারো! সমরাস্ত্র সজ্জিত মায়ানমারের সেনার সামনে হাঁটু মুড়ে আর্জি সন্ন্যাসিনী’র

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের জাতীয় স্বাস্থ্য সচিব আমির আশরফ খোওয়াজা জানিয়েছেন, এই মাসেই ভারত থেকে করোনা টিকা এসে পৌঁছবে তাঁদের দেশে। জুনের মধ্যে দেওয়া হবে আরও ১.৬ কোটি টিকার ডোজ। আপাতত ফ্রন্টলাইন কর্মী ও বর্ষীয়ান নাগরিকদের টিকা দেওয়া চলছে ইসলামাবাদে। পাকিস্তানের বন্ধু রাষ্ট্র চীনের দেওয়া টিকা দিয়েই চলছে টিকাকরণ। কিন্তু কেবল চীনের টিকা যে পর্যাপ্ত হবে না তা বুঝতে পেরেছে ইমরান সরকার। তাই এবার ভারতের মুখাপেক্ষী তারা।

তবে সরাসরি ভারত এই টিকা পাঠাচ্ছে না। GAVI-র মাধ্যমে ভারতে নির্মিত করোনা টিকা পৌঁছাবে পাকিস্তানে। এমনিতে পাকিস্তানে করোনার টিকাকরণ শুরু হয়েছিল দেরিতে l

বর্তমানে ইমরান রাজত্বের পাকিস্তানের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি অত্যন্ত টলমল। এই অবস্থায় ইমরানের দেশের পক্ষে টিকা কেনা খুবই সমস্যার। কয়েক দিন আগেই খোওয়াজা জানিয়ে দিয়েছিলেন, এই মুহূর্তে টিকা কেনার কোনও পরিকল্পনা পাকিস্তানের নেই। তাঁদের ভরসা হার্ড ইমিউনিটি বা গোষ্ঠী অনাক্রম্যতা এবং বন্ধু দেশগুলির থেকে ‘উপহার’ হিসেবে পাওয়া টিকা।

Back to top button
%d bloggers like this: