রাজ্য

‘কেউ কেউ পুরুলিয়ার চাকরির কোটা পকেটে ভরেছিল’, নাম না করেই ‘গদ্দার’ বলে শুভেন্দুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনলেন মমতা

মালদহের প্রশাসনিক সভা থেকে এবার নাম না করেই রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে (Suvendu Adhikari) তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। শুভেন্দুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির (corruption) অভিযোগ তুললেন তিনি। এর পাশাপাশি শিক্ষক নিয়োগ প্রসঙ্গে তিনি সাফ জানিয়ে দেন যে কেউ যদি অন্যায় করে তাহলে সেই দায়ভার দল একেবারেই নেবে না।

আজ, মঙ্গলবার দুপুরে মালদহের গাজোলে তিনটি জেলা নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখান থেকেই নানান ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রকে একহাত নেন তিনি। কেন্দ্রীয় পরিদর্শন দলকেও নিশানা করেন। তাঁদের ‘অশ্বডিম্ব’ বলে কটাক্ষ করেন মমতা। ওই সভা থেকেই নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করেন তিনি।

এদিন শুভেন্দুর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আবারও গদ্দার বলে তোপ দেগে তিনি বলেন, “কয়েকটা ডাকাত-গদ্দার দল থেকে বিদায় নিয়েছে। ভালো হয়েছে। পুরুলিয়ার ছেলেমেয়ের চাকরির কোটাটাই তো কেটে দিয়েছিল”।

এরপর আদালততে উদ্দেশ্য করে বলেন, “আদালতে প্রনাম করে বলব, আপনারা খুঁজে দেখুন পুরুলিয়ায় কী হয়েছিল। পুরুলিয়ার কোটা নিজের পকেটে ভরেছিল। কীসের বিনিময়ে সেটা আর বলছি না। আমি তখন প্রশ্ন করেছিলাম, কেন ওদের বঞ্চিত করা হবে। আমি নতুন করে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিলাম”।

এদিন শুভেন্দুকে তোপ দেগে মমতা আরও বলেন, “একজন খালি বলছেন রাস্তার টাকা দেব না। ১০০ দিনের কাজের টাকা দেব না। উনি দেওয়ার কে? এই সব টাকা তো জনগনের টাকা”।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে এখনও জেলবন্দি রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই নিয়ে মামলা এখনও চলছে। এদিন এও প্রসঙ্গে মুখ খুলে মমতা বলেন, “শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে আমি কিছু বলিনি। কারণ আদালতে মামলা চলছে। আশাকরি ভালো বিচার হবে”। এরপরই বেশ স্পষ্ট ভাষাতেই মমতা বুঝিয়ে দেন যে কেউ অন্যায় করলে বা দোষ প্রমাণিত হলে সেই দায় দল নেবে না।

Back to top button
%d